September 23, 2021

Sylhet Amar Sylhet

www.sylhetamarsylhet.com

ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র। ছবি: কলকাতা২৪

রণসজ্জায় ভারত: সীমান্তে ট্যাংক, ক্ষেপণাস্ত্র-আর্টিলারি মোতায়েন

অনলাইন ডেস্ক : facebook sharing button

চীন সীমান্তে সামরিক অস্ত্র বাড়াচ্ছে ভারত। এরই মধ্যে ট্যাংক ও ক্ষেপণাস্ত্রসহ বিভিন্ন ভারি অস্ত্র মোতায়েন করেছে দেশটি।

এদিকে সীমান্ত সমস্যা মেটাতে বৈঠকে বসতে চলেছে ভারত এবং চীনের শীর্ষস্থানীয় সামরিক কমান্ডাররা। কিন্তু এর আগেও একাধিকবার বৈঠক হয়েছে। সেই বৈঠক কার্যত ব্যর্থ হয়েছে। কারণ চীনের সেনারা এখনও সীমান্তে রয়েছে। ভারতও পাল্টা প্রস্তুতি নিচ্ছে।

স্যাটেলাইটে ধরা পড়া ছবিতে দেখা গিয়েছে, ইতোমধ্যে গালওয়ানের ধারে ব্যাপক সেনা ছাউনি তৈরি করেছে বেইজিং। শুধু তাই নয়, সেনা থেকে সামরিক সরঞ্জামও বাড়িয়েছে তারা।

এছাড়া ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, গালওয়ানে ভারতীয় ভূখণ্ডের ৪২৩ মিটার দখল করেছে চীনের সেনারা। এতে উদ্বেগ বেড়েছে ভারতের।

২২ মে থেকে ২৬ জুনের উপগ্রহ চিত্র বিশ্লেষণ করে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে গালওয়ান নদী এলাকায় দিব্যি নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে চীন। এছাড়া চীনের ১৬টি তাঁবু এবং ত্রিপল আর ১৪টি সাঁজোয়া গাড়ির অস্তিত্ব মিলেছে।

এই পরিস্থিতিতে ভারতও তাদের শক্তি বাড়াতে শুরু করেছে বলে খবর প্রকাশ করেছে কলকাতা২৪।

লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছে ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রধান স্তম্ভ সুখোই-৩০ এমকেআই। মোতায়েন করা হয়েছে ভূমি থেকে নিক্ষিপ্ত (কিউআরস্যাম) ‘আকাশ’ ক্ষেপণাস্ত্র। ইতোমধ্যে সীমান্তে পৌঁছে গিয়েছে ভারতের টি-৯০ ‘ভীষ্ম’ ট্যাংক।

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ভারতীয় স্থলবাহিনীর গর্বের ট্যাংক এটি। এই ট্যাংকের দুটি রেজিমেন্টকে মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী কামানও মোতায়েন করেছে ভারত।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি বলছে, পূর্ব লাদাখের ১৫৯৭ কিলোমিটার দীর্ঘ প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা জুড়ে এখন ইনফ্যান্ট্রি কমব্যাট ভেহিকল (সাঁজোয়া) গাড়ি মোতায়েন করা হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে আর্টিলারিও।

গালওয়ান নদীর ধারে যে সমস্ত ঘাঁটি চীন তৈরি করেছে তা ধ্বংস করতে এই অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র মোতায়েন ভারতের।

এছাড়া লাদাখ সীমান্ত জুড়ে ইসরাইল থেকে কেনা ‘স্পাইডার’ এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমকে মোতায়েন করেছে ভারত।