September 26, 2021

Sylhet Amar Sylhet

www.sylhetamarsylhet.com

ছবি সংগৃহীত

করোনার ‘রেড জোনে’ পরিণত হওয়ায় থানা বিশ্বনাথ

সিলেট বিভাগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৬৩৭ জন। রবিবার পর্যন্ত এ হিসাবে সিলেট জেলার ২৯৪ জন রোগীও অন্তর্ভূক্ত। এর মধ্যে শুধু একটি থানাতেই আক্রান্ত পুলিশ সদস্যের সংখ্যা ২৭!

করোনার ‘রেড জোনে’ পরিণত হওয়ায় এই থানাটি হলো সিলেটের বিশ্বনাথ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেশের মধ্যে কোনো একটি নির্দিষ্ট থানার ২৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হওয়ার নজির এখনও নেই। এর আগে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গাছা থানার ২৫ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছিলেন গত এপ্রিলে। এবার সেই থানাকে ছাড়িয়ে গেছে সিলেটের বিশ্বনাথ থানা। এ থানাই এখন সবচেয়ে ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে সিলেটের জন্য।

জানা গেছে, গত ১৩ মে বিশ্বনাথ থানার করোনাক্রান্ত ৪ পুলিশ সদস্য শনাক্ত হন। এর মধ্যে এসআই পদমর্যাদার ২ জন ও এএসআই পদমর্যাদার ২ জন ছিলেন। তাদের নমুনা ওসমানী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়েছিল। এরপর ১৭ মে একজন এসআই ও একজন কনস্টেবল করোনাক্রান্ত বলে শনাক্ত হন। গেল ১৮ মে করোনা পজিটিভ হন বিশ্বনাথ থানার তিন কনস্টেবল।

এছাড়া গত কয়েকদিনে আক্রান্ত হয়েছেন আরো ১৮ পুলিশ সদস্য। সবমিলিয়ে বিশ্বনাথ থানার ২৭ জন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত। এর মধ্যে ৯ জন এসআই, একজন টিএসআই, ৪ জন এএসআই ও ১৩ জন কনস্টেবল রয়েছেন।

বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) কামরুহজ্জামান জানান, বিশ্বনাথে সবমিলিয়ে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩। এর মধ্যে ২৭ জনই পুলিশ সদস্য।

আক্রান্তদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতর সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান বলেন, ‘কোনো একটি নির্দিষ্ট থানার এতো বেশি সংখ্যক পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা উদ্বেগের। তারা কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের শিকার হয়েছেন সম্ভবত। পুলিশের একজন সদস্য হয়তো আক্রান্ত হয়েছিলেন, তার মাধ্যমে অন্যরাও আক্রান্ত হয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘আর কোনো থানার ২৭ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হওয়ার খবর আমাদের জানা নেই।’