September 27, 2021

Sylhet Amar Sylhet

www.sylhetamarsylhet.com

সিলেট বিভাগের ৩০ স্থানে কম দামে টিসিবির পণ্য

বর্তমান সংকটময় সময়ে নিম্ন ও স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্য সিলেটে পণ্য বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। সিলেটজুড়ে ৩০ স্থানে প্রতিদিনি সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বাজারমূল্যের চেয়ে কম দামে কয়েকটি পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। ডিলারের মাধ্যমে ট্রাকে করে বিক্রি হচ্ছে এসব পণ্য।

টিসিবি সিলেট আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সিলেট বিভাগে গতকাল রবিবার থেকে পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। সিলেট জেলা ও মহানগর মিলিয়ে ১১ স্থানে, সুনামগঞ্জে ৪ স্থানে, মৌলভীবাজারে ৮ স্থানে এবং হবিগঞ্জে ৭ স্থানে পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে।

সিলেটে নগরীর মাছিমপুরস্থ আবুল মাল আব্দুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্স, বন্দরবাজার এলাকা (ক্বিনব্রিজের নিচ বা রেজিস্ট্রারি মাঠ), শাহী ঈদগাহ, আলিয়া মাদরাসা মাঠ, বাগবাড়ি পিডিবি কার্যালয়, টিলাগড় পয়েন্ট, আলমপুর টিটিসি, বৈরাতী কমিউনিটি সেন্টার মদিনা মার্কেট এবং আম্বরখানা কলোনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পণ্য।

আর জেলার মধ্যে বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগর উপজেলায় দুজন ডিলার টিসিবির পণ্য বিক্রি করছেন।

সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই, দোয়ারাবাজার, জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় টিসিবির ডিলার আছেন। তারা পণ্য বিক্রি করছেন।

মৌলভীবাজার জেলার সদরে ৪ জন ডিলার আছেন। এছাড়া জেলার কমলগঞ্জ, শ্রীমঙ্গল, কুলাউড়া, জুড়ী উপজেলায় বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পণ্য।

এদিকে, হবিগঞ্জ জেলা সদরে টিসিবির ৩ জন ডিলার ছাড়াও জেলার লাখাই, বাহুবল, চুনারুঘাট ও  নবীগঞ্জে টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে।

ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ সিলেট আঞ্চলিক কার্যালয়ের প্রধান মো. ইসমাইল মজুমদার এসব তথ্য সিলেটভিউকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সিলেট নগরীর ৯টি স্থানে ১২ জন ডিলারের মাধ্যমে কম দামে পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। তবে সব ডিলার একসাথে নয়, বাই রোটেশনে প্রতিদিন ৯ জন ডিলার বিক্রি করছেন পণ্য। এর বাইরে সিলেট জেলার দুই উপজেলায়, সুনামগঞ্জে ৪ উপজেলায়, মৌলভীবাজারে ৮টি স্থানে এবং হবিগঞ্জে ৭টি স্থানে বিক্রি হচ্ছে কম দামে পণ্য।

ইসমাইল মজুমদার আরো জানান, বর্তমানে চিনি ৫০ টাকা কেজি, ডাল ৮০ টাকা কেজি, সয়াবিন তেল ৮০ টাকা লিটার, ছোলা ৬০ টাকা কেজি, খেজুর ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। দু-একদিনের মধ্যে পেঁয়াজও বিক্রি শুরু হবে।

আগামী ঈদ পর্যন্ত টিসিবি কম দামে পণ্য বিক্রি করবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। এজন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ পণ্যের মজুদ রয়েছে।

তবে সিলেট বিভাগের সব উপজেলায় কেন টিসিবির পণ্য বিক্রি হচ্ছে না, এমন প্রশ্নে টিসিবি কর্মকর্তা ইসমাইল মজুমদার ডিলার না থাকার কথা জানান। তিনি বলেন, ‘টিসিবির পণ্য বিক্রি করার জন্য আগ্রহী ডিলার থাকতে হবে। সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন যাতে ওই ডিলারের পণ্য বিক্রি তদারকি করে, প্রশাসনের নির্দেশ মতো যাতে ডিলার চলে এসব বিষয়ও নিশ্চিত হতে হবে।’

এদিকে, করোনার এই সময়ে সামাজিক দূরত্ব তথা ক্রেতারা যাতে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রাখেন, সেজন্য টিসিবি সচেষ্ট রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ইসমাইল মজুমদার।