October 20, 2021

Sylhet Amar Sylhet

www.sylhetamarsylhet.com

করোনার এই সঙ্কটকালে দেশের মানুষের প্রতি দূর দেশ থেকে এভাবেই ভালোবাসার বার্তা পাঠান প্রবাসে থাকা দেশের এক সময়ের তারকা সব শিল্পীরা। ছবি: সংগৃহীত

এ যাত্রায় বেঁচে গেলে…

অনলাইন ডেস্ক  :

‘এ যাত্রায় বেঁচে গেলে, ভীষণ করে বাঁচবো/ সবাইকে জড়িয়ে ধরে অনেক করে কাঁদবো/এ যাত্রায় রেহাই যদি পাই, অন্যের কথা ভাববো!’-সহস্ত্র সুমনের লেখা কবিতায় করোনার এই সঙ্কটকালে দেশের মানুষের প্রতি দূর দেশ থেকে এভাবেই ভালোবাসার বার্তা পাঠালেন প্রবাসে থাকা দেশের এক সময়ের তারকা সব শিল্পীরা।
আমেরিকা প্রবাসী অভিনেত্রী নওশীনের পরিকল্পনায় বিশেষ এই ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন টনি ডায়েস! যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশের ভিন্ন ভিন্ন শহর থেকে ভিডিও বার্তায় যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের এক সময়ের অভিনয় জগতের অসম্ভব জনপ্রিয় কিছু মুখ।

তাদের মধ্যে ছিলেন- ডলি জহুর, শিরীন বকুল, তমালিকা কর্মকার, তানিয়া আহমেদ, শামীম শাহেদ, রুমানা, প্রিয়া ডায়েস, হিল্লোল, শ্রাবন্তী, খায়রুল ইসলাম পাখি, মোনালিসা, আফরোজা বানু, রওশন আরা হোসেন, জামাল উদ্দিন হোসেন, মিলা হোসেন, কাজী উৎপল, শামসুল আলম বকুল, মহসিন রেজা, রওশন আরা ও লুৎফুন নাহার লতা।

করোনার এই সঙ্কটকালে ঘরে বসেই প্রত্যেকে সেই ভিডিওতে অংশ নেন। এসময় করোনাকে অদেখা শত্রু আখ্যা দিয়ে এটি পরাজিত করতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান জনপ্রিয় এই তারকা শিল্পীরা। আর এরজন্য ঘরে থাকা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন তারা।

একটি ভিডিওটি নিয়ে টনি ডায়েস বলেন, আমাদের এই ভিডিওটি বাংলাদেশের সকল মানুষদের জন্য আমাদের ভালবাসা। সেই সাথে যারা এই যুদ্ধে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অন্যদের জন্য কাজ করছে। আমরা কাউকে হারাতে চাইনা। সৃষ্টিকর্তার সৃষ্টি এই সুদর পৃথিবীতে সবাইকে নিয়ে থাকতে চাই। চলে যাতে চাই স্বাভাবিক নিয়মে।

ভিডিও নির্মাণ করতে যারা সহযোগিতা করেছেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে নব্বই দশকের জনপ্রিয় টিভি অভিনেতা টনি ডায়েস বলেন, সবাইকে অনেক ধন্যবাদ আমার ডাকে সাড়া দেয়ার জন্য। ভাল লেগেছে সবাই মিলে করতে পেরেছি বলে। বিশেষ ধন্যবাদ বন্ধু মুশফিকুর রাহমানকে, আমাকে খোঁচানোর জন্য। ধন্যবাদ সহস্র সুমনকে মন ভাল করা কবিতা লেখার জন্য। অনেক কৃতজ্ঞ মারভিন অধিকারীর প্রতি সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার জন্য। চমৎকার সাউন্ড ট্র্যাক তৈরি করার জন্য।

 

 

 

 

 

 

ইত্তেফাক/বিএএফ