যুদ্ধাপরাধীর ন্যায় বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে দুর্নীতিবাজদের বিচার করতে হবে —মকসুদ হোসেন

দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জননেতা মকসুদ হোসেন সরকারের দুর্নীতি বিরোধী ও রাষ্ট্রীয় শৃঙ্খলা রোধে শুদ্ধি অভিযানের প্রতি আপামর জনগণের অকুণ্ঠ সমর্থন রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, মুষ্টিমেয় এই দুর্বৃত্তদের কাছে জাতি জিম্মি থাকতে পারে না। সম্প্রতি সরকারী চাকুরী আইন কার্যকর করায় জনগণ খুবই মর্মাহত। এই আইন সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক ও বৈষম্যমূলক উল্লেখ করে তিনি বলেন, অবিলম্বে এই আইন বাতিল করতে হবে। উচ্চ পর্যায়ে দুর্নীতি বন্ধ না হলে দেশে দুর্নীতি কমবে না। দুর্নীতিকে সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসতে হলে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতি রোধে দ্রুত ন্যায়পাল নিয়োগ দিতে হবে। সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিষয়-সম্পত্তির হিসাব সরকারের নিকট দাখিলের বিধান বাধ্যতামূলক করতে হবে। যুদ্ধাপরাধীর ন্যায় বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করে শীর্ষ ব্যাংক ডাকাত আব্দুল হাই বাচ্চু গং, রিজার্ভ ব্যাংকের হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাতকারী দেশীয় ডাকাত, পর্দা-বালিশ দুর্নীতি ও শেয়ারবাজার কেলেংকারী নায়কদের পাশাপাশি একাদশ সংসদ নির্বাচনে হলফনামায় আসা গণমাধ্যমে প্রকাশিত অস্বাভাবিক সম্পদের দায়ে অভিযুক্ত মন্ত্রী-এমপিদের বিচার করতে হবে। ছোট লোকের দুর্নীতি পাপ আর বড় লোকের দুর্নীতি মাফ এ নীতি আর চলতে দেয়া যায় না।
মকসুদ হোসেন গতকাল সরকারের শুদ্ধি অভিযান আরো বেগবান ও উচ্চ পর্যায়ের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে এ্যাকশনের দাবীতে দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরাম হবিগঞ্জ জেলা শাখার উদ্যোগে বেলা ২ ঘটিকার সময় স্থানীয় জেলা প্রশাসক অফিস সংলগ্ন নিমতলায় বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
জেলা শাখার সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক সাপ্তাহিক জনতার দলিল এর প্রধান সম্পাদক প্রকাশক সৈয়দ আশরাফ উদ্দিন মামুনের সভাতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন ফুল মিয়া এডভোকেটের পরিচালনায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা মানবাধিকার কর্মী সৈয়দ আকরাম আল সাহান, দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আমীন তাহমিদ, মৌলভীবাজার জেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক সাংবাদিক মোশাহিদ আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক চিনু রঞ্জন তালুকদার, গবেষণা বিষযক সম্পাদক আব্দুল বাছিত। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ জেলা শাখার সহ-সভাপতি শিক্ষিকা হালিমা খানম, মো: আব্দুল মতিন চৌধুরী, মো: আলী আমজাদ, সিনিয়র নেত্রী অমিয় প্রভা চৌধুরী, ডা: সৈয়দ নুরুন্নবী, মো: হোসেন খান, কাজী শাহেদ বিন, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো: সামছুল হক মাস্টার, অর্থ সম্পাদক সৈয়দ কামরুল হাসান সাদিক, জেলা শাখার অন্যতম নেতা সৈয়দ মাকুল আহমদ, সৈয়দ জামিল আহমদ, এনজিও কর্মী হালিমা খাতুন প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ আশরাফ উদ্দিন মামুন ঋণ খেলাপীদের ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা ২০১৫ সাল থেকে বিদেশে অবৈধভাবে পাচার হওয়া ৫০ হাজার কোটি টাকা উদ্ধার করার জোর দাবী জানিয়ে বলেন, সরকারের এই শুদ্ধি অভিযানে আরেকটি ২য় মুক্তিযুদ্ধে পরিণত করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আকুল আহবান জানান।