নাগরিকের পায়ের কাছে বসে প্রধানমন্ত্রী

ফ্লোরে হাঁটু গেড়ে বসে নাগরিকদের সঙ্গে কথা বলছেন জাস্টিন ট্রুডো। ছবি: ফেসবুক

সবার উপরে জনগণ। জনগণই সব শক্তির উৎস। আর একজন নাগরিক সবসময় সম্মানিত। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর চেয়েও। বিষয়টি রাষ্ট্রের আর কারও কাছে গুরুত্ব না পেলেও, জাস্টিন ট্রুডোর কাছে কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আর তাইতো একজন সাধারণ নাগরিকের পায়ের কাছে বসে তার খোঁজ নিতে বিন্দুমাত্র দ্বিধা করেননি তিনি।

শনিবার কানাডার রাজধানী টরোন্টো থেকে স্কারবোরো শহরে যান জাস্টিন ট্রুডো। সেখানে তিনি মেয়র জন টরিককে সঙ্গে নিয়ে কমিউনিটি হাউজিংয়ের উন্নয়নে বড় ধরনের বিনিয়োগের ঘোষণা দেন। দেশটির টেলিভিশনের এই খবর প্রকাশ করা হয়।

এসময় স্কারবোরো শহরের বাসিন্দাদের খোঁজ-খবর নেন জাস্টিন ট্রুডো। পরে সেখানকার ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়। বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতা, লিবারেল পার্টির আবুল আজাদ ফেসবুকে কয়েকটি ছবি পোস্ট করেন। জাস্টিন ট্রুডোও তার ভেরিফাইড ফেসবুক আইডি থেকে ছবি পোস্ট করেন।

নাগরিকের পায়ের কাছে বসে প্রধানমন্ত্রী

ছবি: জাস্টিন ট্রুডোর ফেসবুক পেজ থেকে নেওয়া

ছবিগুলোতে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী হাঁটু গেড়ে ফ্লোরে বসে নাগরিকদের সঙ্গে কথা বলছেন। আর নাগরিকরা বসে আছেন চেয়ারে। সেসময় প্রধানমন্ত্রীর জন্য কেউ পর্যন্ত দাঁড়াননি। পেছনের দিকে একটি চেয়ারে বসে আছেন স্কারবোরো শহরের সাউথওয়েস্টের এমপি এবং মন্ত্রী বিল ব্লেয়ার।

প্রধানমন্ত্রী ফ্লোরে হাঁটু গেড়ে বসে কথা বলছেন নাগরিকদের সঙ্গে। এ সময় নাগরিকের পাশে বেঞ্চে পায়ের উপর পা তুলে বসে আছেন সিটি মেয়র। অবাক করার মত হলেও এটাই বাস্তবতা।